ইউটিউবে নতুন নীতিমালা

নিজের চ্যানেলে বিভিন্ন কনটেন্ট চালিয়ে অর্থ উপার্জনে জনপ্রিয় হচ্ছে গুগলের ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউব। নামে-বেনামে অন্যদের ভিডিও আপলোড করে অর্থ আয় করছে অনেকে। তাই এ ধরনের হয়রানি বা প্রতারণা বন্ধে নতুন নীতিমালা তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এক্ষেত্রে নিজেদের চ্যানেল থেকে অর্থ আয় করতে কমপক্ষে ১০ হাজার ভিউ পেতে হবে।

ইউটিউবের কমিউনিটি গাইড লাইন সম্পর্ক জানতে নিচের লিংক
এখানে ক্লিক করুন

সেখানে আরও বলা হয়, মূলত একজনের ভিডিও অন্যজনের চ্যানেলে পুনরায় আপলোড করে অনেকেই অর্থ উপার্জন পুনরায় আপলোড করে অনেকেই অর্থ উপার্জন করছে। এ ধরনের প্রতারণা ও হয়রানি রোধে বধিত ইউটিউব অংশীদারিত্ব প্রোগ্রাম এ সিদ্ধান্ত নিয়েছ। ১০ হাজার ভিউ হওয়ার পর ইউটিউব যাচাই করে দেখবে কনটেন্টটি। যদি তা ইউটিউবের সব নীতি মেনে চলে, তবেই তাতে বিজ্ঞাপন দেওয়া হবে। তবে এর আগে ১০ হাজার ভিউ পাওয়ার আগেই কোন চ্যানেল অর্থ উপার্জন করে থাকলে নতুন নীতিমালার কারণে তাতে কোনো প্রভাব পড়বে না। নতুন কেউ ইউটিউবার হতে চাইলে তাকেও ইউটিউবের যাচাই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রাম চালু হয় ২০০৭ সালে। তখন থেকেই অনেক ভিডিও নির্মাতা বিজ্ঞাপনের বদৌলতে নিজেদের কনটেন্ট ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করত। ফলে অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল খুলে বড় অংকের অর্থ উপার্জনে সমর্থ হয়। তবে ধর্ষণ সমর্থক, ইহুদিবিদ্বেষ আর ঘৃণা প্রচারকদের তহবিল জোগাতে ব্যবহৃত হচ্ছে কিছু বিজ্ঞাপন- সম্প্রতি এমন অভিযোগের মুখে পড়ে ইউটিউব। ফলে গুগল সার্চ থেকে আড়াই শতাধিক প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞাপন সরিয়ে নেয়।

নতুন নীতিমালা বাস্তবায়িত হলে ভিডিও নির্মাতা ও বিজ্ঞাপনদাতা উভয়ের স্বার্থিই সুরক্ষা পাবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি শহরে ইউটিউব টিভিও চালু হয়েছে। এ টিভি বিনামূল্যে ৩০ দিন পর্যন্ত দেখা যাবে। তবে পরবর্তী সময়ে দেখতে চাইলে মাসিক ৩৫ ডলার খরচ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button